1. admin@ajkernews24bd.com : ajkernews24bd.com :
বুধবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১১:২৪ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে তরুণ নেতৃত্ব প্রাধান্য পাচ্ছে। শপথ নিলেন শরীয়তপুরের নতুন (৩)তিন পৌর মেয়র। ভেদরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ হতে পালিত হয়েছে শহীদ দিবসের ৬৯তম মাতৃভাষা দিবস। ভেদরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদসহ দলের সকল সদস্য পদ থেকে হাজী আব্দুল মান্নান বেপারীকে বহিষ্কার। স্ত্রী আমেনা বেগম কে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যাকারী ও মাদকাসক্ত স্বামী নজরুল সহ ৫জনের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত। শরীয়তপুরের ডামুড্যায় পরকীয়ার কারনে ফেসবুক লাইভে এসে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন। বাগমারায় মাদ্রাসায় দানকৃত জমি ফেরত চেয়ে সংবাদ সম্মেলন নাভারন-সাতক্ষীরা সড়কে দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৫ জন আহত শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের ছুটি আবারও যতদিনের জন্য বাড়ছে। শার্শায় কোভিড-১৯ ভ্যাক্সিনেশন কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন

বাগমারায় মাদ্রাসায় দানকৃত জমি ফেরত চেয়ে সংবাদ সম্মেলন

মুকুল হোসেন,বাগমারা রাজশাহী প্রতিনিধি:
  • প্রকাশিত: রবিবার, ১৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৪৯ বার পড়া হয়েছে

রাজশাহীর বাগমারায় নিজের জমি ফেরত চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করলেন জমির মালিকের পক্ষে মো: সেলিম রেজা রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার আউচপাড়া ইউনিয়নের মজপাড়া গ্রামের মৃত আক্কাস আলীর।

ছেলে মোহাম্মদ সেলিম রেজাসহ তার পরিবারের সদস্যরা আজ ১৩/০২/২০২১ ইং শনিবার হাট গাঙ্গোপাড়া মডেল প্রেসক্লাবে উপস্থিত হয়ে লিখিত বক্তব্য পাঠ এর মাধ্যমে অভিযোগ করে তারা বলেন, আজ থেকে প্রায় ২০ বছর আগে আমরা এবতেদায়ী ও দাখিল মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠান তৈরি করার শর্ত উল্লেখ করে জমি রেজিস্ট্রি করে দিয়ে আজ আমরা চরম বিপাকে পড়েছি।

মৃত আক্কাস আলী গত ১০/ ৭/১৯৮৮ ইং তারিখে ৫২২০ নম্বর দলিলে ০৪ শতাংশ জমি মজপাড়া গাঙ্গোপাড়া এবতেদায়ী ও দাখিল মাদ্রাসার নামে ও তার স্ত্রী মোছাঃ রাহেলা বিবি গত ২২/৩ /২০০৫ ইং তারিখে ২৩৭৯ নং দলিলের ১৫ শতাংশ জমি মজপাড়া গাঙ্গোপাড়া মহিলা দাখিল মাদ্রাসার নামে বিশেষ শর্ত উল্লেখ করে রেজিস্ট্রি করে দেন । শর্তটি হলো “খোদা না করুক কোন কারণে যদি ভবিষ্যতে মাদ্রাসাটি অচল হয়, বা না চলে তাহা হইলে আমার জমি আমারই থাকিবে”।

শর্তটি ৫২২০ নম্বর দলিলের ১৪ নম্বর লাইনে ২৩৭৯ নম্বর দলিলের ৩৮ নম্বর লাইনে সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ করা হয়েছে কিন্তু সরকারী বিধি মোতাবেক শর্ত পূরণ করতে না পারায় ২০০৯ সালে মাদ্রাসাটি পুরোপুরিভাবে বন্ধ হয়ে যায়। ছাত্র ছাত্রী শিক্ষক কর্মচারী এমন কি কমিটি লোকজনও ফিরে তাকায়নি প্রতিষ্ঠানের দিকে ।

এ সময় জমির মালিক পক্ষ দলিলের শর্ত অনুযায়ী জমি ফেরত চাইলে তাদের কাছে কোনো সদুত্তর মেলেনি। মৌখিক ও লিখিতভাবে অভিযোগ করে তৎকালীন পরিচালনা কমিটির কাছে কোনো লাভ হয়নি। । অতঃপর তারা নিরুপায় হয়ে গত ১৯/১১/২০০৯ ইং তারিখে রাজশাহী জেলা জজ আদালতে ২২২ /০৯ নং মামলায় মাদ্রাসা সুপার মোঃ আমজাদ হোসেন ও সিরাজুল সরদারসহ ৪ জনকে বিবাদী করে মামলা দায়ের করেন

এই বিষয়টি নিয়ে আজ ১১ বছর যাবৎ জমি উদ্ধারের জন্য আদালতে যাওয়া আশা করছেন এমন অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা। এমতাবস্থায় তাদের একটাই দাবি যেহেতু তাদের জমিতে প্রতিষ্ঠান নাই সেহেতু দলিলে উল্লেখিত শর্ত বাস্তবায়নে সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত